মিয়ানমারের বিধ্বস্ত বিমানের ১৫ যাত্রী জীবিত উদ্ধার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: আন্দামান সাগরে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বিধ্বস্ত বিমানের ১৫ যাত্রীকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার ১১৬ আরোহীবাহী বিমানটির ধ্বংসাবশেষের সন্ধান পাওয়ার পর ১৫ যাত্রীকে জীবিত উদ্ধারের তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ দৈনিক ডেইলি মিরর।

বুধবার দেশটির দক্ষিণাঞ্চলের মিয়েক শহর থেকে রাজধানী ইয়াঙ্গুনের উদ্দেশে যাত্রা শুরুর পর পরই বিমানটি নিখোঁজ হয়। মিয়েক শহরের পর্যটন কর্মকর্তা নাইং লিন জ্য বলেন, দাওয়েই শহর থেকে ১৩০ মাইল (২১৮ কিলোমিটার) দূরে সাগরে তারা বিমানের ধ্বংসাবশেষের সন্ধান পেয়েছেন।

পরিচয় প্রকাশ না করার শর্তে দেশটির বিমানবাহিনীর একটি সূত্র নিশ্চিত করে বলছে, নৌ-বাহিনীর তল্লাশি ও উদ্ধারকারী জাহাজ বিমানের ধ্বংসাবশেষের টুকরা পেয়েছে। তবে প্রথমে কোনো যাত্রীর বেঁচে থাকার সম্ভাবনা নেই বলে জানানো হলেও পরে ১৫ যাত্রীকে জীবিত উদ্ধারের তথ্য এসেছে স্থানীয় গণমাধ্যমে। তবে ওই যাত্রীদের অবস্থা সম্পর্কে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

মিয়ানমার সেনাপ্রধানের কার্যালয় এক বিবৃতিতে বলছে, স্থানীয় সময় বুধবার দুপুর ১টা ৩৫ মিনিটের দিকে বিমানটির সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। যোগাযোগ বিচ্ছিন্নের সময় সেনাবাহিনীর ওই বিমান দাওয়েই শহরের ২০ মাইল পশ্চিমের আকাশে ছিল।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আন্দামান সাগরের ওপর দিয়ে উড়তে থাকা বিমানটি নিখোঁজের পরপরই তল্লাশি অভিযান শুরু হয়েছে। সাগরে জাহাজ মোতায়েনের পাশাপাশি বিমান থেকেও বিমানের খোঁজে অনুসন্ধান চলছে।

ইয়াঙ্গুন বিমানবন্দরের একটি সূত্র বলছে, উড্ডয়নের সময় বিমানটিতে ১০৫ যাত্রী ও ১১ ক্রু ছিলেন। নিখোঁজ বিমানের খোঁজে নৌ-বাহিনীর চারটি জাহাজ ও বিমানবাহিনীর দুটি বিমানকে পাঠানো হয়েছে।