এক ম্যাচে এত রান আগে দেখেনি বিপিএল

জোনায়েত হোসেনঃ চট্টগ্রামের সাগরিকা বরাবরই উপহার দেয় রানবন্যার ম্যাচ। হোক টেস্ট, ওয়ানডে বা টি-টোয়েন্টি; জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে চার-ছক্কার ফুলঝুরি খুবই স্বাভাবিক দৃশ্য। আর খেলাটা যদি হয় বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের- তাহলে যেন রেকর্ডের পসরা সাজিয়েই বসে সাগরপাড়ের এই মাঠ।

বিপিএল ইতিহাসে সর্বোচ্চ পাঁচটি দলীয় সংগ্রহের চারটিই হয়েছে এই মাঠে। আজ (শুক্রবার) সাগরিকার এই মাঠে কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে মাত্র ১ রানের জন্য বিপিএল ইতিহাসের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়তে পারেনি চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। বিশ ওভারে তাদের ইনিংস থেমেছে ৪ উইকেটে ২৩৮ রানে।

তবে মাত্র ১ রানের জন্য এক ইনিংসে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড না হলেও, ম্যাচে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড ঠিকই হয়েছে ছুটির দিনের ম্যাচটিতে। সাপ্তাহিক ছুটির দিন তথা শুক্রবার ম্যাচ হওয়ায় সাগরিকায় দর্শক ছিলো আগের দুইদিনের চেয়ে বেশি। তাদের হতাশ করেনি কুমিল্লা ও চট্টগ্রাম।

আগে ব্যাট করে চ্যাডউইক ওয়ালটন, ইমরুল কায়েসের ফিফটির সঙ্গে আভিশকা ফার্নান্দো- নুরুল হাসান সোহানদের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ৪ উইকেটে ২৩৮ রান করেছিল চট্টগ্রাম। জবাবে কম যায়নি কুমিল্লাও। ডেভিড মালানের ৮৪ রানের ঝড়ো ইনিংসের সঙ্গে দাসুন শানাকা ও আবু হায়দার রনির ঝড়ে তারা থামে ৭ উইকেটে ২২২ রানে।

দুই ইনিংস মিলিয়ে এই ম্যাচে রান হয়েছে মোট ৪৬০। যা কি না বিপিএলের ইতিহাসে এক ম্যাচে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড। আগের রেকর্ডটি ছিলো দুই দিন আগে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ও ঢাকা প্লাটুনের মধ্যকার ম্যাচে। সেদিন দুই দল মিলে করেছিল মোট ৪২৬ রান।

বিপিএলের এক ম্যাচে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড
১. চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স বনাম কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স – ৪৬০ (২০১৯)
২. চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স বনাম ঢাকা প্লাটুন – ৪২৬ (২০১৯)
৩. বরিশাল বার্নার্স বনাম রাজশাহী কিংস – ৪২২ (২০১৩)
৪. চিটাগাং ভাইকিংস রংপুর রাইডার্স – ৪০৬ (২০১৯)
৫. চিটাগাং ভাইকিংস বনাম খুলনা টাইটানস – ৪০২ (২০১৯)